৫৮২ কোটি টাকাকি বাতাসে খেয়েছে? বিসিআইসি এর প্রতি হাইকোর্ট

৫৮২ কোটি টাকাকি বাতাসে খেয়েছে? বিসিআইসি এর প্রতি হাইকোর্ট

৫৮২ কোটি টাকাকি বাতাসে খেয়েছে? বিসিআইসি এর প্রতি হাইকোর্ট

৫৮২ কোটি টাকাকি বাতাসে খেয়েছে? বিসিআইসি এর প্রতি হাইকোর্ট

৫৮২ কোটি টাকা সার আত্মসাতের বিষয়ে আদালতে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিল করেনি বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (বিসিআইসি)। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে হাইকোর্ট।

আদালত বলেন, ‘টাকা কি বাতাসে খেয়েছে? কারা এই কেলেঙ্কারিতে জড়িত, কারা এই টাকা আত্মসাৎ করেছে- তাদের নাম বলুন। দুর্নীতিবাজদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। প্রয়োজনে আদালত থেকে সরাসরি তাকে জেলে ঢোকাবো।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুন) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ  ক্ষুব্ধ মন্তব্য করেন।

আদালতে বিসিআইসির পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোল্লা কিসমত হাবিব। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। পরে আদালত ৯ জুলাই পূর্ণাঙ্গ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

৫ জানুয়ারি একটি জাতীয় দৈনিকে `৫৮২ কোটি সার আত্মসাৎ’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। আইনজীবী খুরশীদ আলম খান প্রতিবেদনটি নজরে আনলে আদালত এ আদেশ দেন।

৫ জুন ৫৮২ কোটি টাকা আত্মসাতের বিষয়ে বিসিআইসিকে ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কর্তৃপক্ষের ব্যর্থতা কেন বেআইনি হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়। পাশাপাশি এ বিষয়ে দুদককে তদন্তের নির্দেশ দেন আদালত।

আদালত বিসিআইসির আইনজীবীর উদ্দেশে বলেন, ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত? নাম-ঠিকানা পাওয়া গেল না? মানুষ কি আত্মসাৎ করেছে? তাই বলে বাতাসে খেয়েছে? তদন্ত প্রতিবেদনে নাম উল্লেখ না থাকলে খরচ কত? এ সময় বিসিকের আইনজীবী মোল্লা কিসমত হাবিব বলেন, আত্মসাৎ হয়েছে। আদালত বলেন, বিশেষভাবে  তখন বিসিআইসির আইনজীবী বলেন, মেসার্স পটন ট্রেডার্স পটন নিজেই জড়িত। আদালত বলেছেন, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না, সে যেই হোক না কেন।

শুনানির অগ্রগতি জানাতে দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান একদিনের আরজি করেন। এ পর্যায়ে আদালত আগামী রোববার শুনানি রাখার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। বিসিআইসির আইনজীবী মোল্লা কিসমত হাবিব তখন বলেন, তদন্ত প্রতিবেদনে অনেক পৃষ্ঠা রয়েছে, আগামী রোববার হলফনামা দাখিল করা প্রায় অসম্ভব। ছুটির পরের দিন রাখার অনুরোধ করেন। পরে আদালত আগামী ৯ জুলাই শুনানির দিন ধার্য করেন।

প্রতিবেদনের একটি অংশে বলা হয়, সরকারের আমদানি করা ৭২ হাজার মেট্রিক টন রাসায়নিক সার পরিবহনের দায়িত্বে থাকা ঠিকাদার মেসার্স পোটন ট্রেডার্স বন্দর থেকে খালাসের পর গুদামে পৌঁছে না দিয়ে আত্মসাৎ করেছে। এতে সরকারের ৫৮২ কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে।

মেসার্স পটন ট্রেডার্স সাবেক সংসদ সদস্য কামরুল আশরাফ খান (পোটন) এর মালিকানাধীন একটি কোম্পানি।

    X