নিউইয়র্ক শহরের বেশ কিছু এলাকা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে প্লাবিত হয়েছে

নিউইয়র্ক শহরের বেশ কিছু এলাকা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে প্লাবিত হয়েছে

নিউইয়র্ক শহরের বেশ কিছু এলাকা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে প্লাবিত হয়েছে

নিউইয়র্ক শহরের বেশ কিছু এলাকা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে প্লাবিত হয়েছে

শক্তিশালী ঝড় এবং ভারী বৃষ্টিতে আকস্মিক বন্যার কারণে নিউইয়র্ক সিটিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। আকস্মিক বন্যায় শহরের অনেক সাবওয়ে, রাস্তা ও মহাসড়ক প্লাবিত হয়েছে। গ্রীষ্মমন্ডলীয় ঝড়ের কারণে ভারী এই বৃষ্টিপাত। আর সেই বৃষ্টিপাতের পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরেদেখা দিয়েছে নজিরবিহীন বন্যাভাব । নগরীর কিছু এলাকা কোমর-গভীর পানিতে তলিয়ে গেছে।এছাড়াও, লগার্ডিয়া বিমানবন্দরের অন্তত একটি টার্মিনাল শুক্রবার বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।শহরের কিছু অংশে ৮ ইঞ্চি (২০ সেমি) পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে এবং শুক্রবারের পরে আরও বেশি হবে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

গভর্নর ক্যাথি হচুল বলেছেন “ঝড়টি খুবই বিপজ্জনক ছিল,” । পুরো অঞ্চল জুড়ে যে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে তার কারণে আমি নিউইয়র্ক সিটি, লং আইল্যান্ড এবং হাডসন ভ্যালিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করছি।’

তিনি জনগণকে নিরাপদে থাকতে এবং বন্যার রাস্তায় চলাচল এড়াতে বলেছেন। তবে এখন পর্যন্ত কোনো মৃত্যু বা গুরুতর আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।নিউ ইয়র্ক সিটি থেকে হাডসন নদীর ওপারে নিউ জার্সির হোবোকেনেও জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

নিউইয়র্ক সিটির মেয়র এরিক অ্যাডামস একটি প্রেস ব্রিফিংয়ে জনসাধারণকে  সতর্ক করেছেন যে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার সময় এসেছে। “আমাদের কিছু সাবওয়ে প্লাবিত হয়েছে এবং শহরের চারপাশে যাওয়া খুব কঠিন,” । দেশটির মেট্রোপলিটন ট্রান্সপোর্টেশন এজেন্সি অনুসারে, বন্যা নিউইয়র্কের পাতাল রেল ব্যবস্থা এবং মেট্রো নর্থ কমিউটার রেল পরিষেবাতে বড় ধরনের ব্যাঘাত ঘটায়।

কিছু পাতাল রেল পরিষেবা সম্পূর্ণরূপে স্থগিত করা হয়েছিল এবং অনেক স্টেশন বন্ধ আছে।

জরুরী কর্মকর্তারা শহরের উত্তরে মামারানের ওয়েস্টচেস্টার কাউন্টি উপশহরে প্লাবিত ভবনে আটকে পড়া লোকজনকে উদ্ধার করেছেন।

বিভিন্ন ছবি এবং ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে মানুষ হাঁটু পর্যন্ত পানিতে হেঁটে যাচ্ছে। ভারী বৃষ্টিতে রাস্তা ও পাতাল রেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা বেশ কিছু ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে সাবওয়ে স্টেশনের ছাদ ও দেয়াল থেকে এবং প্ল্যাটফর্মে পানি পড়ছে।

একটি ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে, নিউইয়র্কের শীর্ষ জলবায়ু কর্মকর্তা রোহিত আগরওয়াল বলেছেন, শহরের পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা প্রতি ঘন্টায় ১.৭৫ ইঞ্চির বেশি বৃষ্টিপাত পরিচালনা করতে পারে না। ব্রুকলিন নেভি ইয়ার্ডের হিসেব অনুযায়ী, শুক্রবার মাত্র এক ঘণ্টায় ২.৫ ইঞ্চি বৃষ্টি হয়েছে।

তিনি মন্তব্য করেছেন, “ব্রুকলিনের কিছু অংশ এই বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত  হয়েছে ।  এটাই স্বাভাবিক।” ব্রুকলিনের দক্ষিণ উইলিয়ামসবার্গ এলাকায় হাঁটু-গভীর পানিতে ড্রেন পরিষ্কারের ভিডিওও সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা গেছে।

পানি সম্পূর্ণভাবে কমার আগেই কর্তৃপক্ষ লা গার্দিয়া বিমানবন্দরের টার্মিনাল বন্ধ করে দেয়। সমস্ত যাত্রীদের ভ্রমণের আগে তাদের এয়ারলাইন্সের সাথে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে, উদ্ধার অভিযানে সহায়তার জন্য ন্যাশনাল গার্ডকে নিযুক্ত করা হয়েছে। নিউইয়র্ক সিটিতে এই মাসে প্রায় ১৪ ইঞ্চি বৃষ্টি হয়েছে।  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়া বিভাগ, ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস অনুসারে১৮৮২ সালের পর এই প্রথমবারের মতো সেপ্টেম্বরে এই পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়েছে।

নিউইয়র্কে ভারী বৃষ্টির কারণে বন্যা, জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। প্রবল বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরের একটি বড় অংশ।আশংকা  আছে বন্যার।

স্থানীয় সময় শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বৃষ্টি না কমলে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এ কারণে নিউইয়র্কে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস (এনডব্লিউএস) জানিয়েছে, নিউইয়র্কের প্রায় ৮.৫ মিলিয়ন মানুষ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিভিন্ন সড়কে পানি জমে গেছে। ফুটপাথ তলিয়ে গেছে। কারণ বৃষ্টি কমছে না, পানি নামছেনা।

এনডব্লিউএস জানিয়েছে, ব্রঙ্কস, ব্রুকলিন, কুইন্স সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা। ম্যানহাটনের রাস্তায় অনেক গাড়ি পানিতে আটকে থাকতে দেখা গেছে। নিউইয়র্কের বেশিরভাগ অংশে গণপরিবহন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

আরও নিউজ

নিউইয়র্ক সিটি ধীরে ধীরে নিম্নে দেবে যাচ্ছে

নিউইয়র্ক সিটির ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট কমিশনার জেচারি ইসকল বলেছেন, এটি দুই বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভারী বৃষ্টি। গত দুই বছরের মধ্যে গতকাল ছিল সবচেয়ে বৃষ্টির দিন। এই পরিস্থিতি আবহাওয়ার প্রতি গভীর মনোযোগ দেওয়ার এবং আবহাওয়া সম্পর্কে আরও সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দেয়। বিষয়টিকে আর হালকাভাবে নেওয়া যায় না।

অন্যদিকে, গতকাল নিউইয়র্কের গভর্নর ক্যাথি হচুল জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। এক্স বার্তায় তিনি বলেন, অবিরাম বৃষ্টির কারণে নিউইয়র্ক সিটি, লং আইল্যান্ড এবং হাডসন ভ্যালিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

এর আগে, নিউইয়র্ক ২০২১ সালের আগস্টে প্লাবিত হয়েছিল। সেই সময় শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ইডার প্রভাবে ভারী বৃষ্টি হয়েছিল। এই বন্যায় নিউইয়র্কের অনেক ভবনের বেসমেন্ট তলিয়ে  গিয়েছিলো  । এছাড়া নগরীর উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ১৩ জন প্রাণ হারিয়েছিলেন।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X