২২ সালে প্রায় ৪ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু

২২ সালে প্রায় ৪ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু

২২ সালে প্রায় ৪ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু

২২ সালে প্রায় ৪ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু

জীবিকার তাকিদে; নিজের দেশকে, নিজের পরিবারকে, নিজের ভালোবাসার মানুষকে ত্যাগ করে অন্য দেশে যাওয়া। ইনকামকে বাড়িয়ে পরিবারকে খুশি করে নিজের জীবনকে সচ্ছল করার উদ্দেশ্যেই প্রত্যেকটি অভিবাসন-প্রত্যশী  মানুষ এপথ বেছে নেয়। এভাবে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অন্য দেশে বা তার দেশ থেকে আরেকটু উন্নত দেশে যেতে আগ্রহী হয় । আর সেই আগ্রহে বাধা হয়ে দাঁড়ায় লুট করে খাওয়া, বড় হয়ে যাওয়া, অমানবিকে সমৃদ্ধ দেশগুলোর ভিসা বা প্রবেশাধিকার আইন । আর এ কারণে বছরে বছরে হাজার হাজার মানুষের জীবন নষ্ট হয় ,যাদের পিছনে রয়েছে পিছুটান আর পিছুটান ।

২০২২ সালে, ৩ হাজার ৮০০ অভিবাসন প্রত্যাশী বিপজ্জনক পথ অতিক্রম করতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছিলেন। যা ২০২১ সালের তুলনায় ১১ শতাংশ বেশি। জাতিসংঘের অভিবাসন সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) মঙ্গলবার (১৪ জুন) তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য দিয়েছে।

নিহতদের বেশিরভাগই মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা থেকে আসা অভিবাসী। আইওএম জানিয়েছে, সাহারা মরুভূমি ও ভূমধ্যসাগরের মতো বিপজ্জনক পথ পাড়ি দিচ্ছিল এসব মানুষগুলো । তাদের লক্ষ্য ছিল ইউরোপে পৌঁছানো।

সংস্থাটি বলছে, ৯২ শতাংশ ক্ষেত্রে মৃত্যুর কারণ অজানা। তবে নৌকাডুবি বা তীব্র পানি এবং ক্ষুধার মতো কারণগুলো প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

আইওএম আরও বলেছে যে গত বছর ইয়েমেন-সৌদি আরব রুটে সর্বাধিক ৭৯৫ জন প্রাণ হারিয়েছে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X