হাইপারসনিক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ‘ফাত্তাহ’ তৈরি করেছে ইরান

হাইপারসনিক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ‘ফাত্তাহ’ তৈরি করেছে ইরান

হাইপারসনিক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র 'ফাত্তাহ' তৈরি করেছে ইরান

হাইপারসনিক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ‘ফাত্তাহ’ তৈরি করেছে ইরান

ইরান হাইপারসনিক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করেছে। পশ্চিম এশিয়ার দেশটি মঙ্গলবার (৬ জুন) তাদের প্রথম দেশীয়ভাবে তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র উন্মোচন করেছে। এতে তেহরানের ক্ষেপণাস্ত্র সক্ষমতা নিয়ে পশ্চিমাদের উদ্বেগ বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আইআরএনএ জানিয়েছে, প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইরান মঙ্গলবার তার প্রথম অভ্যন্তরীণভাবে উন্নত হাইপারসনিক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উন্মোচন করেছে। আর ইরানের এই পদক্ষেপ তেহরানের ক্ষেপণাস্ত্র সক্ষমতা নিয়ে পশ্চিমাদের উদ্বেগ বাড়িয়ে দেবে।

ইরানের প্রথম হাইপারসনিক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের নাম ফাত্তাহ। ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম মঙ্গলবার ক্ষেপণাস্ত্রের ছবি প্রকাশ করেছে। দেশীয়ভাবে উন্নত হাইপারসনিক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রটি ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি এবং ইরানের অভিজাত বিপ্লবী গার্ডের শীর্ষ কমান্ডারদের উপস্থিতিতে একটি অনুষ্ঠানে উন্মোচন করা হয়।

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র মূলত শব্দের গতির চেয়ে অন্তত পাঁচগুণ দ্রুতগতিতে ছুটতে পারে এবং জটিল গতিপথে উড়তে পারে। আর এ কারণেই এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র আটকানো খুবই কঠিন।

মঙ্গলবার সকালে তেহরানে IRGC এরোস্পেস ফোর্সের সর্বশেষ কৃতিত্ব ফাত্তাহ ক্ষেপণাস্ত্র উন্মোচন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়, IRNA জানিয়েছে। এর আগে মে মাসের শেষের দিকে, IRGC এরোস্পেস ফোর্স কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির-আলি হাজিজাদেহ আসন্ন ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণকে ‘উল্লেখযোগ্য সাফল্য’ বলে বর্ণনা করেছিলেন।

ইরানের সরকারী বার্তা সংস্থা দাবি করেছে যে ফাত্তাহ হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রটি খুব উচ্চ গতিতে উড়তে পারে এবং পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে এবং এর বাইরেও তার দুর্দান্ত কৌশলগত ক্ষমতার কারণে বিভিন্ন অপারেশন চালাতে পারবে ।

IRNA আরও জানিয়েছে যে ফাত্তাহ হাইপারসনিক মিসাইল ১৪০০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে পারে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় টিভি বলেছে, ইরানের ফাতাহ ক্ষেপণাস্ত্র “শত্রুর উন্নত ক্ষেপণাস্ত্র-বিরোধী সিস্টেমে আঘাত হানতে পারে”। এটি ইসরায়েলের আয়রন ডোম সহ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইহুদিবাদী শাসকদের সবচেয়ে উন্নত ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাকে ওভারপাস করতে সক্ষম বলেও দাবি করা হয়।

উল্লেখ্য, হাইপারসনিক মিসাইল শব্দের চেয়ে পাঁচগুণ দ্রুত গতিতে যেতে পারে। হাইপারসনিক মিসাইল উৎক্ষেপণের পর খুব দ্রুত উপরে উঠে এবং খুব দ্রুত নিচে নেমে আসে। তারপর এটি বায়ুমণ্ডলের মধ্য দিয়ে অনুভূমিকভাবে চলতে পারে এবং ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের বিপরীতে গতিশীল অবস্থায়ও এর গতিপথ পরিবর্তন করতে পারে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X