May 25, 2024

Warning: Undefined array key "tv_link" in /home/admin/web/timetvusa.com/public_html/wp-content/themes/time-tv/template-parts/header/mobile-topbar.php on line 53
চতুর্থ দেশ হিসেবে চাঁদে অবতরণ করে ইতিহাস গড়ল ভারত

চতুর্থ দেশ হিসেবে চাঁদে অবতরণ করে ইতিহাস গড়ল ভারত

চতুর্থ দেশ হিসেবে চাঁদে অবতরণ করে ইতিহাস গড়ল ভারত

চতুর্থ দেশ হিসেবে চাঁদে অবতরণ করে ইতিহাস গড়ল ভারত

ভারতের চন্দ্রযান-৩ ল্যান্ডার বিক্রম সফলভাবে চন্দ্রের মাটি স্পর্শ করেছে। মহাকাশযানের বিশেষ অংশ, ল্যান্ডার বিক্রম, ভারতের স্থানীয় সময় বুধবার (২৩ আগস্ট) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬:৪০ মিনিটে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে নেমে আসে। এর মাধ্যমে আমেরিকা, রাশিয়া এবং চীনের পর ভারত চতুর্থ দেশ হিসেবে সফলভাবে চাঁদে মহাকাশযান অবতরণ করল।

এর আগে ভারতের চন্দ্রযান-২ এর ল্যান্ডার চাঁদে অবতরণের সময় বিধ্বস্ত হয়। সোমবার, চন্দ্রযান-৩-এর ল্যান্ডার মডিউল ‘বিক্রম’ সফলভাবে তার উত্তরসূরি চন্দ্রযান-২-এর অরবিটারের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করেছে। চন্দ্রযান-২ বিধ্বস্ত হলেও এর অরবিটার এখনও চাঁদকে অনুসরণ করছে। আগের ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার অনেক শক্তিশালী সেন্সর ক্রমানুসারে ইনস্টল করা হয়েছে। এমনকি বিজ্ঞানীরা বলেছেন, সেন্সর কাজ না করলেও বিক্রম ঠিকমতো চাঁদে অবতরণ করতে পারবে।

১৪ জুলাই ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টার থেকে চন্দ্রযান-৩ উৎক্ষেপণ করা হয়। চন্দ্রযান-৩-এর ল্যান্ডারের নাম ‘বিক্রম’, রোভারের নাম ‘প্রজ্ঞান’। ল্যান্ডারটির উচ্চতা প্রায় ২ মিটার এবং ওজন ১৭০০ কেজির বেশি। ছোট রোভারের ওজন মাত্র ২৬ কেজি। চাঁদের বুকে ঘুরে বৈজ্ঞানিক গবেষণা চালাবে এই রোভার।

ISRO= Indian Space Research Organisation -এর ওয়েবসাইট সহ সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক, ইউটিউব পেজ ৫.২০ মিনিট থেকে চাঁদে অবতরণের লাইভ সম্প্রচার শুরু করে। লক্ষ লক্ষ ভারতীয় সহ বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষ এই মুহূর্তটি উপভোগ করেন। এই মাহেন্দ্রক্ষণের সাক্ষী হতে এই সময়ে স্কুলগুলিও খোলা রাখা হয়।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলন থেকে চাঁদে চন্দ্রযান-৩ অবতরণের দৃশ্য উপভোগ করেছেন।

চাঁদে ভারতের অভিযান সফল হলে, এটিই প্রথমবারের মতো কোনো দেশের মহাকাশযান চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করবে। এটা ইতিহাসও  তৈরি করেছে। যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীনের পর এবার চাঁদে মহাকাশযান পাঠাতে সফল হবে ভারত।

কয়েকদিন আগে, চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণের সময় রুশ লুনার প্রোব লুনা-২৫ বিধ্বস্ত হয়। যেকোনো ধরনের বিপর্যয় এড়াতে ISRO অনেক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়েছে লাখো মানুষ বিক্রমের চাঁদে অবতরণের মুহূর্ত প্রত্যক্ষ করেছে।

বিক্রমের সফল অবতরণের পর এখন এর সঙ্গে যুক্ত বিশেষ রোভার প্রজ্ঞা কাজ শুরু করেছে। এটি আগামী ১৪ দিন চাঁদকে প্রদক্ষিণ করবে। সেখান থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য পাঠানো হবে ইসরোর কাছে। এটি সৌরশক্তির সাহায্যে কাজ করছে। পৃথিবীর মতে, চান্দ্র মাস ২৮ দিন। এখানে ১৪ দিন রাত এবং ১৪ দিন সূর্যালোক রয়েছে। বুধবার থেকে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে ১৪ দিন সূর্যের আলো থাকবে। তাই অবতরণের জন্য এই সময়কেই বেছে নিয়েছেন ইসরো বিজ্ঞানীরা।

ভারতের ল্যান্ডার বিক্রম দক্ষিণ মেরুতে পৌঁছে চাঁদের নতুন ছবি পাঠিয়েছে। নতুন পাঠানো ছবিগুলি ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো) সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছে।

ইসরোর শেয়ার করা ছবিগুলি বিক্রম ল্যান্ডারের হরাইজন্টাল ভেলোসিটি ক্যামেরায় তোলা হয়েছে।

বুধবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টা ৩৪ মিনিটে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে সফলভাবে অবতরণ করেছে ভারতীয় মহাকাশযান চন্দ্রযান-৩। যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চীনের পর চতুর্থ দেশ হিসেবে চাঁদে অবতরণ করেছে ভারত।

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা এবং ইউরোপীয় মহাকাশ সংস্থা ইএসএ চাঁদে সফলভাবে অবতরণের জন্য ভারতীয় মহাকাশ সংস্থা ইসরোকে অভিনন্দন জানিয়েছে। উভয় সংস্থাই ইসরো বিজ্ঞানীদের মহাকাশযান ট্র্যাক করতে সাহায্য করেছিল যখন চন্দ্রযান-৩ ভারতের মহাকাশ ট্র্যাকিং স্টেশনের নজরদারিতে   ছিল।

বিশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের চন্দ্র অভিযানে মোট ব্যয় হয়েছে ৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। অন্যদিকে, রবিবার চাঁদে বিধ্বস্ত হওয়া রুশ চন্দ্র প্রোব লুনা-২৫ -এর খরচ ছিল ২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। একটি তুলনা দেখায় যে ভারত রাশিয়ার তুলনায় অর্ধেকেরও কম খরচে বিশ্বকে সফল অবতরণ দিয়েছে।

আরও পড়তে

বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রেম করা নিষিদ্ধ!

মৃতদেহের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ভারতে অপরাধ গণ্য না হওয়া দুর্ভাগ্যজনক: কর্ণাটক হাইকোর্ট

কর্ণাটক বিধানসভা পেল প্রথম মুসলিম স্পিকার

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ভারতের আগের চাঁদ ও মঙ্গল মিশনগুলোও কম খরচে চালানো হয়েছিল। পুরো কৃতিত্ব ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থাকে (ইসরো) যায়। সংস্থাটি সর্বদা ‘পণ্য বর্জ্য’ করার জন্য বিশেষ প্রচেষ্টার দিকে মনোনিবেশ করেছে।

ইসরোর সিনিয়র বিজ্ঞানীরা বিবিসি তামিলকে বলেছেন যে ভারতের উৎক্ষেপণের খরচ এখনও কম হতে পারে কারণ দেশটি দক্ষিণ রাজ্য তামিলনাড়ুর কুলাসেকারাপট্টিনমে একটি নতুন মহাকাশবন্দর তৈরির পরিকল্পনা করছে। নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব হলে, এটি মহাকাশযান উৎক্ষেপণের জন্য একটি আদর্শ স্থান হবে এবং পরিবহন খরচও অনেক কমে যাবে।

১৪ জুলাই শ্রীহরিকোটা থেকে চন্দ্রযান-৩  মিশন উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল। ভারত এর আগে ২০১৯ সালে চন্দ্রযান-২ মিশন পাঠিয়েছিল কিন্তু তা ব্যর্থ হয়।

ভারতীয় মহাকাশ সংস্থা ইসরো জানিয়েছে, কোনো সমস্যা ছাড়াই মহাকাশযানটি সফলভাবে অবতরণ করবে। চন্দ্রযান-২ মিশনের ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে তারা নতুন করে এই চন্দ্রযান-৩ পাঠিয়েছে।

    1 Comment

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X