কালো কাপড়ে ঢাকা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের বাসভবন

কালো কাপড়ে ঢাকা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের বাসভবন

কালো কাপড়ে ঢাকা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের বাসভবন

কালো কাপড়ে ঢাকা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের বাসভবন

পরিবেশবাদীরা সবসময়ই পরিবেশ রক্ষার জন্য হরেক রকম প্রচেষ্টা করে গিয়েছেন। এবং ব্রিটিশ প্রধানের বাড়িও ডেকে দিয়েছেন  কালো কাপড়ে।  যেন প্রকৃতিকে প্রকৃতির পানিকে  নষ্ট না করে ফেলেন সে ভবিষ্যৎ চিন্তা ভাবনা থেকেই । কারণ পরিবেশবাদীরা রাজনীতিবিদের মতো তড়িৎ চিন্তার অধিকারী নয় ।  পরিবেশবাদীরা ভবিষ্যৎ উন্নয়ন পরিকল্পনায় সুস্থ মাথায় চিন্তা করে থাকেন ।সে চিন্তার ফলশ্রুতিতেই সুনাকের বাড়ি কালো কাপড় দিয়ে ঢেকে দিয়ে প্রতিবাদ করে জানিয়ে দিয়েছেন তেলের লাভই  প্রকৃতির লাভ নয় ।

ইংল্যান্ডের গ্রিনপিস কর্মীরা বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের ব্যক্তিগত বাসভবনে কালো কাপড় পরে। সুনাকের বাসস্থান ইংল্যান্ডের ইয়র্কশায়ারের উত্তর জেলায় অবস্থিত। বিক্ষোভকারীরা তেল খনন সংক্রান্ত সরকারের নীতির সমালোচনা করে ভবনের ছাদে  বিশাল কালো চাদর ঝুলিয়ে দিয়েছে । সকাল ৯টার দিকে গ্রিনপিস ইউকে ওয়েবসাইটে ছবিটি পোস্ট করা হয়। তারপরও সেখানে অন্তত ২ ঘণ্টা অবস্থান করেন পরিবেশকর্মীরা। পরে ইয়র্কশায়ার পুলিশ এসে তাদের সরিয়ে দেয়।

মোট পাঁচ বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বুধবার ক্যালিফোর্নিয়ায় ছুটি কাটাতে ব্রিটেন ছেড়েছেন সুনাক। পরিবেশগত বিষয়ে সুনাকের রেকর্ড পরীক্ষা-নিরীক্ষার আওতায় এসেছে যখন তিনি বলেছিলেন যে তিনি জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য একটি “আনুপাতিক পদ্ধতি” গ্রহণ করবেন যা ভোক্তাদের বিল কম রাখার প্রয়োজনের সাথে চাহিদার ভারসাম্য বজায় রাখবে। উত্তর সাগরে তেল ও গ্যাস উত্তোলনের শতাধিক লাইসেন্সের ছাড়পত্র দিয়েছে সুনাক প্রশাসন।

তাদের দাবি, এর ফলে ব্রিটেনে দুই লাখ চাকরি বাঁচবে। এছাড়াও, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের ক্ষেত্রে জ্বালানি নিরাপত্তা সুরক্ষিত করা হবে। কিন্তু পরিবেশবাদীদের দাবি, বৈশ্বিক উষ্ণায়নের কারণে আটলান্টিক মহাসাগরে বরফ গলে স্রোতের স্বাভাবিক প্রবাহ নষ্ট হচ্ছে, সেখানে সুনাকের সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া যায় না। বিষয়টি জলবায়ু প্রতিবাদকারীদের মধ্যে ক্ষোভের জন্ম দিয়েছে।

গ্রিনপিস ইউকে-এর অনলাইনে পোস্ট করা ছবিতে বিক্ষোভকারীরা ব্যানার ধরে লিখেছেন( “ঋষি সুনক – তেলের লাভ আমাদের ভবিষ্যত নয়?”)  বিক্ষোভকারীরা দাবি করেন যে তারা বার্তাটি নিয়ে সরাসরি সুনাকের কাছে যেতে চান কারণ তিনি একটি নতুন তেল ও গ্যাস উত্তোলন লাইসেন্সে স্বাক্ষর করেছেন।

গ্রিনপিস বলেছে যে এটি ইকুইনোরের (EQNR.OL) রোজব্যাঙ্ক তেল ক্ষেত্রের প্রস্তাবিত উন্নয়নেরও প্রতিবাদ করছে, যা একটি চূড়ান্ত বিনিয়োগ সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করছে৷ ব্রিটেন ২০৫০০ সালের মধ্যে নেট শূন্য কার্বন নির্গমনের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে এবং দ্রুত তার নবায়নযোগ্য শক্তির ক্ষমতা বৃদ্ধি করছে। কিন্তু ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন জ্বালানি নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ বাড়িয়েছে, ব্রিটিশ সরকার সোমবার আরও শক্তি সুরক্ষিত করার প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে উত্তর সাগরে তেল ও গ্যাসের জন্য ড্রিল করার জন্য শত শত লাইসেন্স দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। এটি ডিসেম্বরে কয়েক দশকের মধ্যে প্রথম গভীর কয়লা খনির অনুমোদন দেয়। সুনাকের কনজারভেটিভ পার্টির কেউ কেউ পরিবেশগত প্রতিশ্রুতিতে প্রধানমন্ত্রীর পিছিয়ে পড়ায় শঙ্কিত। তবে সুনাকের দাবি, কার্বন নিঃসরণ কমাতে অন্যান্য বড় দেশের তুলনায় ব্রিটেন ভালো করেছে।

আরও পড়তে পারেন

বরিস জনসন ফিরে আসেন তার পুরানো পেশা সাংবাদিকতায়

উল্লেখ্য, ঋষি সুনাক (জন্ম ১৯৮০) একজন ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ, যিনি ২০২২সাল থেকে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী এবং রক্ষণশীল পার্টির নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি এর আগে ২০২০ থেকে ২০২২পর্যন্ত এক্সচেকারের চ্যান্সেলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১৫ সাল থেকে তিনি সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন রিচমন্ড (ইয়র্ক) আসনের সাংসদ (এমপি)।

সুনাক সাউদাম্পটনে পাঞ্জাবি বংশোদ্ভূত পিতামাতার কাছে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তার বাবা-মা ১৯৬০-এর দশকে পূর্ব আফ্রিকা থেকে ব্রিটেনে চলে আসেন। তিনি উইনচেস্টার কলেজে পড়াশোনা করেছেন। সুনাক অক্সফোর্ডের লিঙ্কন কলেজে দর্শন, রাজনীতি এবং অর্থনীতি অধ্যয়ন করেছেন এবং স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ করেছেন। স্ট্যানফোর্ডে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়, তিনি তার ভবিষ্যত স্ত্রী, ভারতীয় ধনকুবের ব্যবসায়ী এন আর নারায়ণ মূর্তির কন্যা অক্ষতা মূর্তির সাথে দেখা করেছিলেন। স্নাতক হওয়ার পর, সুনাক গোল্ডম্যান শ্যাক্সে ফান্ড ম্যানেজার হিসেবে কাজ করেন এবং পরে হেজ ফান্ড ফার্ম চিলড্রেনস ইনভেস্টমেন্টে।

কনজারভেটিভ পার্টির নেতা হিসাবে, সুনাক রাজা চার্লস থেকে সরকার গঠনের আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন এবং ২৫ অক্টোবর ২০২২-এ প্রধানমন্ত্রী হন। প্রধানমন্ত্রী হিসাবে তার প্রথম বক্তৃতায়, সুনাক “সততা, পেশাদারিত্ব এবং জবাবদিহিতার” প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন এবং বলেছিলেন যে “আমরা এমন একটি ভবিষ্যত গড়ে তুলবে যা অনেক লোকের ত্যাগের প্রতিদানকে সম্মান দেবে।

স্ট্যানফোর্ডে অধ্যয়নকালে, তিনি ভারতীয় বহুজাতিক কোম্পানি ইনফোসিসের প্রতিষ্ঠাতা এন আর নারায়ণ মূর্তির কন্যা অক্ষতা মূর্তি এর সাথে দেখা করেন। তারা আগস্ট ২০০৯ সালে বিয়ে করেন । তাদের দুটি মেয়ে রয়েছে, কৃষ্ণা এবং আনুশকা।

সুনাক একজন সনাতন হিন্দু এবং তিনি ভগবদ্গীতা হাতে নিয়ে হাউস অফ কমন্সে এমপি হিসেবে শপথ নিয়েছেন।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X