বরিস জনসন ফিরে আসেন তার পুরানো পেশা সাংবাদিকতায়

বরিস জনসন ফিরে আসেন তার পুরানো পেশা সাংবাদিকতায়

বরিস জনসন ফিরে আসেন তার পুরানো পেশা সাংবাদিকতায়

বরিস জনসন ফিরে আসেন তার পুরানো পেশা সাংবাদিকতায়

যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সংসদ সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করে তার পুরনো সাংবাদিকতায় ফিরেছেন। দেশের অন্যতম প্রভাবশালী সংবাদপত্র ডেইলি মেইল তাকে তাদের নতুন কলামিস্ট হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। শুক্রবার (১৬ জুন) ডানপন্থী গণমাধ্যম এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এখন থেকে প্রতি শনিবার পেপারে বরিসের কলাম থাকবে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর চাকরির বিষয়টি নিশ্চিত করে ডেইলি মেইল বলেছে, “আপনি বরিস জনসনের ভক্ত নাও হতে পারেন, তবে ওয়েস্টমিনস্টার (ব্রিটিশ পার্লামেন্ট) সহ বিশ্বের মানুষের তার লেখা পড়া দরকার।”

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, কলামে বরিস যুক্তরাজ্যের বর্তমান সরকার ও প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড নিয়ে তার মতামত তুলে ধরতে পারেন। লোভনীয় এই চাকরিতে সংবাদপত্র থেকে গাড়িও পাচ্ছেন তিনি।

জনসন ৯ জুন এক বিবৃতি দিয়ে সংসদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন। এর আগে পার্টিগেট কেলেঙ্কারির কারণে গত বছর তাকে প্রধানমন্ত্রীর পদ ছাড়তে হয়।

বিভিন্ন ‘কেলেঙ্কারির’ জনক জনসনের ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল সাংবাদিকতা দিয়ে। দ্য টাইমস-এ কাজ করার সময়, কারও নামে মিথ্যা বিবৃতি দেওয়ার জন্য পত্রিকায় তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়। ডেইলি টেলিগ্রাফের ব্রাসেলস সংবাদদাতা হিসাবে কাজ করার সময়, তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) একজন স্পষ্টবাদী সমালোচক হিসাবে পরিচিত হয়ে ওঠেন।

একসময় রাজনীতি ও সাংবাদিকতা একসঙ্গে করতেন। জনসন সংসদ সদস্য এবং স্পেক্টেটর ম্যাগাজিনের সম্পাদকের পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন এবং প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আগে ডেইলি টেলিগ্রাফের জন্য নিয়মিত কলামও লিখেছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আগে, তিনি একটি টেলিগ্রাফ কলামে বলেছিলেন যে পর্দানশীল মুসলিম মহিলারা তাকে ডাকবাক্স বা ব্যাংক ডাকাতদের মতো দেখতেন। এই মন্তব্যের জন্য তাকে ইসলাম বিরোধীও বলা হয়।

    1 Comment

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X