আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস বুধবার (৩১ মে)। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘গ্রো ফুড, নট টোব্যাকো’(খাদ্য বাড়ান, তামাক নয়) বিকল্প খাদ্য শস্য উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের সুযোগ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করা এবং তামাক চাষিদের টেকসই ও পুষ্টিকর ফসল চাষে উৎসাহিত করা।

তামাক উৎপাদনে কোম্পানির কৌশল প্রকাশ করাও এবারের বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবসের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্য। ‘গ্রো ফুড, নট টোব্যাকো’  প্রতিপাদ্য নিয়ে বাংলাদেশে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত হয়।

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেল (এনটিসিসি) প্রতি বছরের মতো এবারও দিবসটি যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি বাণী দেন। সাহাবুদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সভাপতি মোঃ সাহাবুদ্দিন তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ থেকে তামাক নির্মূল করতে হলে তামাকের উৎপাদন ও ব্যবহার দুটোই কমাতে হবে।

একই সঙ্গে প্রয়োজনীয় সংশোধনের পাশাপাশি বিদ্যমান তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করতে সুশীল সমাজ, পেশাজীবী সংগঠন, বেসরকারি সংস্থা ও গণমাধ্যমকে এ বিষয়ে সম্মিলিত প্রচেষ্টা চালানোর আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে বলেন, জনসচেতনতা বৃদ্ধি এবং স্টেকহোল্ডারদের বাস্তব ভূমিকার মাধ্যমে ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, বিশ্ব উষ্ণায়ন ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে বিশ্বব্যাপী খাদ্য সংকটের আশঙ্কা রয়েছে। এ অবস্থায় যাদের পতিত জমি আছে তাকে চাষের আওতায় আনতে হবে এবং খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে হবে। এছাড়া ধূমপান ও তামাকের বিপজ্জনক আসক্তি থেকে সবাইকে দূরে থাকতে হবে। আমি আশা করি, জনসচেতনতা বৃদ্ধি এবং স্টেকহোল্ডারদের বাস্তব ভূমিকার মাধ্যমে আমরা ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে পারব, ইনশাআল্লাহ।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X