ওআইসি,রোহিঙ্গাদের সম্মানজনক প্রত্যাবাসন চায়

ওআইসি,রোহিঙ্গাদের সম্মানজনক প্রত্যাবাসন চায়

ওআইসি,রোহিঙ্গাদের সম্মানজনক প্রত্যাবাসন চায়

ওআইসি,রোহিঙ্গাদের সম্মানজনক প্রত্যাবাসন চায়

ওআইসির মহাসচিব হেসেইন ব্রাহিম ত্বহা বলেন, ওআইসি বরাবরই রোহিঙ্গা ইস্যুকে গুরুত্ব দিয়ে আসছে। ফিলিস্তিন সমস্যার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছেও রোহিঙ্গা সমস্যাকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। ওআইসি রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধান চায় এবং বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের মর্যাদাপূর্ণ টেকসই প্রত্যাবর্তনের জন্য সবসময় কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালিয়েছে। মিয়ানমার সরকারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত রাখতেও  ওআইসিভুক্ত দেশগুলো ভূমিকা রাখছে।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে মিয়ানমারের সামরিক জান্তার বিরুদ্ধে গাম্বিয়া সরকারের রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচার সম্পন্ন করতে ওআইসি কাজ করছে। মতবিনিময়কালে রোহিঙ্গা প্রতিনিধি দল ওআইসি মহাসচিবের কাছে তাদের জাতিসত্তার স্বীকৃতি, নাগরিকত্বের নিরাপত্তা, নিজ বাড়িতে জমি ফেরত এবং রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচারের দাবি তুলে ধরেন।

সোমবার সকালে উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কনফারেন্স (ওআইসি) মহাসচিব হেসেইন ব্রাহিম ত্বহা। ওআইসি মহাসচিব পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। সকালে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছালে ওআইসি মহাসচিব ও প্রতিনিধি দলকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, ইউএনএইচসিআর প্রতিনিধি এবং শরণার্থী কমিশন অফিসের কর্মকর্তারা স্বাগত জানান।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কার্যালয়ের কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনকালে ওআইসি মহাসচিবের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গাদের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে দেখা করেন এবং তাদের শিক্ষা কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। সকাল সাড়ে ১০টায় ওআইসি মহাসচিব হোসেইন ইব্রাহিম ত্বহা উখিয়া বর্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প ৪ নম্বর ব্র্যাক সেন্টারে পৌঁছান। পরে তিনি সেখানে রোহিঙ্গাদের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

বিকেলে পাঁচ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রোহিঙ্গা লার্নিং সেন্টার ও রোহিঙ্গাদের তৈরি পাটজাত পণ্যের প্রদর্শনী কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। বিকেলে ওআইসি প্রতিনিধি দল ঢাকায় ফিরে আসে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X