June 19, 2024

Warning: Undefined array key "tv_link" in /home/admin/web/timetvusa.com/public_html/wp-content/themes/time-tv/template-parts/header/mobile-topbar.php on line 53
কলকাতায় খুন এমপি আনোয়ারুল আজীম আনার

কলকাতায় খুন এমপি আনোয়ারুল আজীম আনার

কলকাতায় খুন এমপি আনোয়ারুল আজীম আনার

কলকাতায় খুন এমপি আনোয়ারুল আজীম আনার

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে কলকাতার নিউ টাউন এলাকার একটি ফ্ল্যাটে খুন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম। কলকাতা পুলিশ সকালে এমপি আনারের বন্ধুকে ফোন করে লাশ উদ্ধারের খবর দেয়।

চিকিৎসার জন্য কলকাতায় গিয়ে এই এমপি যে বন্ধুর বাড়িতে উঠেছিলেন, সেই গোপাল বিশ্বাস বুধবার সকালে পুলিশের কাছ থেকে আনারের লাশ উদ্ধারের খবর পান।

আনার নিখোঁজ হওয়ার পর গোপাল বিশ্বাস থানায় জিডি করেন। তিনি বুধবার বলেন, ওই জিডির তদন্ত কর্মকর্তা শুভেন্দু গোস্বামী সকালে তাকে ফোন করে আনার লাশ উদ্ধারের কথা জানান। কথা বলার জন্য গোপালের বাসায় যাচ্ছেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

গোপাল বিশ্বাস তাৎক্ষণিকভাবে বিস্তারিত তথ্য দিতে না পারলেও কলকাতার স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, নিউ টাউন এলাকার সঞ্জীব গার্ডেন নামের একটি বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে বাংলাদেশের সংসদ সদস্যের লাশ পাওয়া গেছে।

আনোয়ারুল আজিম আনারকে ‘খুন’ করা হয়েছে বলে কলকাতার দৈনিক পত্রিকা তাদের অনলাইন সংস্করণে লিখেছে। নিউ টাউন পুলিশ এবং বিধান নগর গোয়েন্দা শাখার পুলিশ এবং এইচডিএফ আধিকারিকরা তদন্ত করছেন। ওই বাড়ির সিসিটিভি ভিডিও খতিয়ে দেখছেন তাঁরা।

এ বিষয়ে ঢাকার পুলিশ কমিশনার হাবিবুর রহমানবলেন, “আমরাও পত্রিকার মাধ্যমে জানতে পেরেছি। বিধান নগরের পুলিশ কমিশনার পত্রিকাকে বলেন, তার লাশ একটি ভাড়া বাসায় পাওয়া গেছে। আমাদের সঙ্গে সরাসরি কোনো যোগাযোগ নেই। আমরা তাদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি।”

ঝিনাইদহ-৪ আসনের তিনবারের সংসদ সদস্য আন্নার কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। ১১ মে চিকিৎসার জন্য তিনি দর্শনা-গেদে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে যান।

কলকাতায় পৌঁছে তিনি বরাহনগরে তাঁর বন্ধু গোপাল বিশ্বাসের বাড়িতে অবস্থান করেন। কিন্তু ১৬ মে থেকে তার পরিবার তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছে না।

গোপাল বিশ্বাস ১৮ মে বরাহনগর থানায় আন্না নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগে একটি জিডি করেন। কথিত আছে, আনার ১৩ মে দুপুরে ওই বাড়ি থেকে বের হয়ে ফেরেননি। কিন্তু হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর থেকে একটি বার্তায় বলা হয়েছে তিনি দিল্লি যাচ্ছেন।

এদিকে আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডোরীন পরে ঢাকায় গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার বাবার নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি জানায়।

মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদের বলেন, “সরকারি সব সংস্থা এ নিয়ে কাজ করছে। এনএসআই, এসবি, পুলিশ কাজ করছে। এটা নিয়ে ভারতীয় পুলিশ, ভারতের গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে কাজ করা হচ্ছে।”

আর ঢাকা পুলিশ কমিশনার হাবিবুর রহমান সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, এখন পর্যন্ত যেসব তথ্য পাওয়া গেছে তাতে ধারণা করা হচ্ছে তিনি (ভারতীয়) প্রতারকদের খপ্পরে পড়েছেন।

এদিকে গত ১৬ মে এমপির মোবাইল ফোনে পিএ আব্দুর রউফের মোবাইল ফোনে কল আসলেও তিনি ধরতে পারেননি। পরে ফিরতি ফোন দিলে কেউ ধরেনি। পরে একটা এসএমএস আসে।

পুলিশ কমিশনার হাবিবুর এসএমএসে কী লেখা ছিল তা না জানালেও বার্তাটি ভুয়া বলে প্রতীয়মান হয়েছে।  তিনি বলেন এটা  কোনো সংসদ সদস্যের দেওয়া ‘বার্তা’ নয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আনোয়ারুল গত ১২ মে সন্ধ্যা ৭টার দিকে কলকাতায় বন্ধু গোপাল বিশ্বাসের বাসায় ভারতে যান। গোপালের সঙ্গে তার ২৫ বছরের পারিবারিক সম্পর্ক। ১৩ মে, আনুমানিক ২টার দিকে (কলকাতা স্থানীয় সময়) আনোয়ারুল ডাক্তারের কাছে যাওয়ার কথা বলে গোপাল বিশ্বাসের বাড়ি থেকে বের হন। তারপর গোপালকে বলে যে সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরবে। বাড়ি না ফেরায় গত ১৮ মে কলকাতার বরাহনগর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন গোপাল বিশ্বাস।

জিডিতে গোপাল বিশ্বাস উল্লেখ করেন, “আনোয়ারুল আজিমের সঙ্গে ২৫ বছর ধরে তার পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে। গত ১২ মে সন্ধ্যা ৭টার দিকে আনোয়ারুল আজিম কলকাতার মণ্ডলপাড়া লেনে তার (গোপাল বিশ্বাস) বাড়িতে আসেন। ডাক্তার দেখাতে কলকাতায় আসেন। পরের দিন (১৩ মে) স্থানীয় সময় দুপুর সোয়া ২টার দিকে গোপাল বিশ্বাসের বাড়ি থেকে বের হন আনোয়ারুল (আনোয়ারুল) যাওয়ার সময় তিনি (আনোয়ারুল) বলে যান, দুপুরে খাবেন না। সন্ধ্যায় ফিরে আসবেন। পরে তিনি কলকাতা পাবলিক স্কুলের সামনে এসে নিজেই গাড়ি ডেকে চলে যান।’

জিডির তথ্যে জানা গেছে, সন্ধ্যায় আনোয়ারুল আজিম গোপাল বিশ্বাসের বাসায় ফেরেননি। আনোয়ারুল আজিমের হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর থেকে গোপালকে একটি বার্তা পাঠানো হয়েছিল যে তিনি একটি বিশেষ কাজে দিল্লি যাচ্ছেন। সেখানে পৌঁছে সে গোপাল বিশ্বাসকে ফোন করে বলবে গোপাল বিশ্বাসকে ফোন করার দরকার নেই। পরে ১৫মে স্থানীয় সময় ১১:২১টায় আনোয়ারুল আজিমের নম্বর থেকে হোয়াটসঅ্যাপে আরেকটি বার্তা আসে। এতে আনোয়ারুল আজিমের দিল্লি আসার খবর জানিয়ে বলা হয়, ‘আমার সঙ্গে ভিআইপিরা আছেন, ফোন করার দরকার নেই।’ আনোয়ারুল আজিমের নম্বর থেকে বাংলাদেশে তার পরিবার ও ব্যক্তিগত সহকারীদের কাছে একই বার্তা পাঠানো হয়েছে।

কলকাতা পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, আনোয়ারুল আজিমকে কলকাতার নিউ টাউনের সঞ্জীব গার্ডেনের একটি ফ্ল্যাটে খুন করা হয়েছে।

আরও পড়তে

বয়স্কভাতার কার্ড নিয়ে ভগ্নিপতির হাতে শ্যালক খুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X