June 19, 2024

Warning: Undefined array key "tv_link" in /home/admin/web/timetvusa.com/public_html/wp-content/themes/time-tv/template-parts/header/mobile-topbar.php on line 53
আজিজ-বেনজীরদের নিয়ে যা বললেন যুক্তরাষ্ট্র

আজিজ-বেনজীরদের নিয়ে যা বললেন যুক্তরাষ্ট্র

আজিজ-বেনজীরদের নিয়ে যা বললেন যুক্তরাষ্ট্র

আজিজ-বেনজীরদের নিয়ে যা বললেন যুক্তরাষ্ট্র

মানবাধিকার লঙ্ঘনকারীদের জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে পাঠানোর বিষয়টি এবং সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ ও আইজিপি বেনজীর আহমেদ মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে উঠে এসেছে। মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার এ বিষয়ে ওয়াশিংটনের অবস্থান তুলে ধরেন।

আজিজ আহমেদের দুর্নীতিতে ব্যাপক জড়িত থাকার কারণে কিছুদিন আগে যুক্তরাষ্ট্র তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে এর আগেই  বেনজির নিষিদ্ধ। একটি তথ্যচিত্রে অভিযোগ করা হয়েছে যে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়োজিত বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের মানবাধিকার লঙ্ঘনের রেকর্ড রয়েছে৷

মঙ্গলবারের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে মিলার বলেন, দুর্নীতিবিরোধী বিষয়টি মার্কিন নিরাপত্তা স্বার্থের কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে। শান্তিরক্ষা মিশন আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে শান্তি ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তিনি আরও বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সাম্প্রতিক তথ্যচিত্র সম্পর্কে অবগত৷

একজন সাংবাদিক জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে মানবাধিকার লঙ্ঘনের রেকর্ড সহ লোকদের মোতায়েন সম্পর্কে জানতে চান। সাংবাদিক বলেন, যদিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র র‌্যাবের ওপর ব্যাপক মানবাধিকার লঙ্ঘনের কারণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে,তিনটি গণমাধ্যমের যৌথ তদন্তে জানা গেছে যে এই বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান সদস্যরা জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী হিসেবে শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়মিত নিয়োজিত আছেন। . এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কতটা উদ্বিগ্ন? কারণ শান্তিরক্ষা বাহিনীর মোট ব্যয়ের প্রায় ২৭ শতাংশ দেয় যুক্তরাষ্ট্র।

জবাবে, ম্যাথু মিলার বলেন, “আমরা এই প্রতিবেদনগুলি সম্পর্কে অবগত। শান্তিরক্ষা কার্যক্রম আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার প্রচারে এবং শান্তিরক্ষী কর্মীদের মানবাধিকার রক্ষায় অপরিহার্য ভূমিকা পালন করে। জাতিসংঘের ডিউ ডিলিজেন্স নীতি অনুসারে, জাতিসংঘ নির্ভর করে। এই বিষয়ে সৈন্য- এবং পুলিশ-অবদানকারী দেশগুলির স্ব-প্রত্যয়ন প্রমাণ করে যে তারা মানবাধিকার লঙ্ঘন বা আন্তর্জাতিক মানবিক আইন লঙ্ঘনের সাথে জড়িত শান্তিরক্ষা মিশনে সামরিক বা পুলিশ কর্মীদের পাঠাচ্ছে না।

পৃথক প্রশ্নে এক সাংবাদিক জানতে চান, বেনজীর আহমেদের ব্যাপক দুর্নীতির খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। তার বিরুদ্ধে দুটি মার্কিন নিষেধাজ্ঞাও  রয়েছে। একটি মার্কিন সত্তা কি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বা অন্য কোনো দেশে তার কোনো সম্পদ খুঁজে পেয়েছে বা যদি পাওয়া যায় যুক্তরাষ্ট্র কি সেই সম্পদগুলো জব্দ করবে? একইভাবে দুর্নীতিবাজ সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ সম্পর্কেও আপনার কাছে কোনো তথ্য আছে? যুক্তরাষ্ট্র কি বর্তমান সরকারের শীর্ষ নেতৃত্ব এর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেবে?

জবাবে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের এই মুখপাত্র বলেছেন, আপনার প্রথম প্রশ্ন সম্পর্কে, আমার কাছে এই বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য নেই। দ্বিতীয় প্রশ্নের উত্তরে, আমরা আপনার উল্লেখ করা অভিযোগ এবং মিডিয়া রিপোর্ট সম্পর্কে অবগত।

তিনি বলেন, ‘আমরা স্পষ্টভাবে বলেছি, দুর্নীতি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে বাধা দেয়। আমরা বিশ্বাস করি যে দুর্নীতি উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করে এবং সরকারকে অস্থিতিশীল করে এবং গণতন্ত্রকে দুর্বল করে। এই প্রশাসনের শুরু থেকেই আমরা দুর্নীতিবিরোধী নীতিগুলিকে আমাদের জাতীয় নিরাপত্তার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করেছি।

মুখপাত্র মিলার যোগ করেছেন, “এই মুহূর্তে আমার নতুন কিছু ঘোষণা করার নেই।” আপনি জানেন, আমরা কখনই নিষেধাজ্ঞা বা অন্যান্য পদক্ষেপের পূর্ব ঘোষণা করি না।

বাংলাদেশের সকল পর্যায়ে বিশেষ করে সরকারি বিভিন্ন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সহকারে সকল কর্মকর্তাদের মাঝে এমনকি সেনাবাহিনীর মাঝেও রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করছে দুর্নীতি। আর পুলিশতো “নিজের খেয়ে সরকার ভাই ,নৌকা মার্কায় ভোট চাই” এই নিয়ে চলছে বাংলাদেশ। এই স্লোগান দিয়ে যেভাবে মানুষ হত্যায় লেলিয়ে উঠেছিল এই পুলিশ বাহিনী। হ্যাঁ তাদেরকে যে, সরকার প্রধান সময়ের ব্যবধানে পায়খানার টিস্যুর মত ব্যবহার করে ফেলে দেয়। সেটা বুঝতে একটু বেশি সময়ই ব্যয় করে ফেলে আজিজ-বেনজিররা।

উল্লেখ্য, সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার (অব.) সাখাওয়াত হোসেন, সাবেক সচিব আবু আলম, শহীদ খান ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক সমকালকে এসব কথা বলেন। শহীদ খান বলেন, আজিজ আহমেদ, বেনজীর আহমেদ ও আনোয়ারুল আজিম যখন ক্ষমতায় ছিলেন তখন যে অভিযোগগুলো এখন উত্থাপিত হচ্ছে সেগুলো আগেই না তুলে ধরার জন্য মিডিয়াও দায়ী।

আরও জানুন

নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের সম্পদও বাজেয়াপ্ত করবেঃ আতঙ্কে বাংলাদেশী ব্যবসায়িক বুদ্দারা

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X