May 25, 2024

Warning: Undefined array key "tv_link" in /home/admin/web/timetvusa.com/public_html/wp-content/themes/time-tv/template-parts/header/mobile-topbar.php on line 53
হারিকেন হিলারি ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা

হারিকেন হিলারি ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা

হারিকেন হিলারি ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা

হারিকেন হিলারি ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা

ঘূর্ণিঝড় হিলারি যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে। প্রচণ্ড বৃষ্টিপাতে  বন্যার আশঙ্কা করা হচ্ছে। ঐতিহাসিক এই ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে রাজ্য সরকার।

শক্তিশালী এই ঘূর্ণিঝড় হিলারি যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোর দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ক্যাটাগরি ৪ হারিকেন হিলারি যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের দক্ষিণাঞ্চলে ভারী বর্ষণ ও বন্যার সতর্কবার্তা দিয়েছে।

ভারী বর্ষণে সেখানে বন্যা হতে পারে। রোববার বা সোমবার হারিকেনের প্রভাবে সেখানে বৃষ্টি শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

শক্তিশালী হারিকেনটি শুক্রবার মেক্সিকোর কাবো সান লুকাস থেকে ৩২৫ মাইল দূরে অবস্থিত ছিল। সে সময় ঝড়ের বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৩০ মাইল। দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়া ৮৪ বছরের মধ্যে প্রথম বিরল গ্রীষ্মমন্ডলীয় ঝড়ের সাক্ষী হতে পারে।

ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর গ্যাভিন নিউসম শনিবার (১৯ আগস্ট) দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার বেশিরভাগ এলাকার  জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। এছাড়া সম্ভাব্য ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক, বৈদ্যুতিক অবকাঠামো এবং বিপজ্জনক বন্যা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে প্রস্তুতি শুরু করার নির্দেশ দেন তিনি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন গত শুক্রবার বলেছেন যে ফেডারেল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সির (ফেমা) সদস্যদের ক্যালিফোর্নিয়ায় পাঠানো হয়েছে। প্রয়োজনে তারা সাড়া দিতে প্রস্তুত।

বিবৃতিতে বাইডেন বলেছেন, “আমি ঝড়ের পথে সবাইকে সতর্কতা অবলম্বন করতে এবং রাজ্য ও স্থানীয় কর্মকর্তাদের নির্দেশনা শোনার আহ্বান জানাচ্ছি।”

দেশটির ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার (NHC) অনুসারে, ঝড়টি দক্ষিণ-পশ্চিমের কিছু অংশে এক দিনে  এক বছরের সমান  বৃষ্টি আনতে পারে। যাইহোক, শনিবার রাতে ক্যালিফোর্নিয়ার দিকে রওনা হওয়া ঝড়টি ক্যাটাগরি ১-এ নামিয়ে আনা হয়েছে, যার অর্থ এটি দুর্বল হয়ে পড়েছে। বর্তমানে এর গতি ঘণ্টায় ৯০ মাইল। তবে সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী হিলারি তার ট্র্যাকে সামান্য পরিবর্তন এনে কিছুটা গতি তুলেছে। ক্যালিফোর্নিয়ার সান দিয়েগোর আবহাওয়া পরিষেবা বলছে, ঝড়ের সরাসরি প্রভাব রবিবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দৃশ্যমান হবে। স্থানীয় সময় বিকেল ৩টার দিকে ঝড়টি সান দিয়েগোতে আঘাত হানবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কিন্তু এই ঝড়ের প্রধান বিপদ হল অতিবৃষ্টি ও বন্যা। যার প্রভাব পড়বে রবিবার ও সোমবার। ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টারের মতে, রবিবার ভোরে বাতাস উঠবে এবং ভারী বৃষ্টিপাত করবে। দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়া এবং নেভাদার কিছু অংশে৩-৬  ইঞ্চি এবং ১০ ইঞ্চি পর্যন্ত বৃষ্টি হতে পারে। দেশের বাকি অংশে ১-৩ ইঞ্চি বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে।

এনএইচসি বলেছে যে বৃষ্টি এবং বন্যার প্রভাবের জন্য যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সমস্ত প্রস্তুতি নেওয়া উচিত।

যদি ঝড়টি স্থলভাগে আছড়ে পড়ে, এটি হবে ৮৪ বছরের মধ্যে ক্যালিফোর্নিয়ায় আঘাত করা প্রথম গ্রীষ্মমন্ডলীয় ঝড়। শেষবার ১৯৩৯ সালে ক্যালিফোর্নিয়ায় ক্রান্তীয় ঝড় আঘাত হানে।

ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে

হারিকেন হিলারি বাজা, মেক্সিকো এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের খুব কাছাকাছি চলে এসেছে। এমন পরিস্থিতিতে ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

ঝড় আঘাত হানার আগে ক্যালিফোর্নিয়ার আকাশ মেঘে ঢেকে যায়।

। তবে এর প্রভাবে বাজা ও ক্যালিফোর্নিয়ায় ভারী বর্ষণ ও বন্যা হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

যেহেতু ক্যালিফোর্নিয়া গত ৮৪ বছরে গ্রীষ্মমন্ডলীয় ঝড় দেখেনি। ফলে হারিকেন হিলারিকে ‘ঐতিহাসিক’ ঝড় বলছেন আবহাওয়াবিদরা।

ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নরের কার্যালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, “হারিকেন হিলারির প্রতিক্রিয়া এবং ঝড়-পরবর্তী ত্রাণ প্রচেষ্টার অংশ হিসাবে শনিবার গভর্নর গ্যাভিন নিউজম দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার বেশিরভাগ অংশে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন।”

এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ওই অঞ্চলে সাধারণত এক বছরে যে পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয় একদিনে সে পরিমাণ বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইউএস ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার জানিয়েছে, ঝড়ের একটানা বাতাসের গতি ঘণ্টায় ১৩০ মাইল থেকে ৯০ মাইল প্রতি ঘণ্টায় নেমে এসেছে।

তবে ঝড়টি উপকূলের দিকে গতি বাড়িয়েছে। ফলে এটি প্রত্যাশিত সময়ের আগে (রবিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় সময়) আঘাত হানবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়টি বর্তমানে ১৮ কিলোমিটার বেগে চলছে।

শেষ গণনায়, ঝড়টি সান দিয়েগো থেকে ৫৩৫মাইল দূরে ছিল। যাইহোক, ঝড়টি বর্তমানে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার শীতল জলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, এটি যতই এগিয়ে যাবে ততই এটি দুর্বল হতে থাকবে।

তবে ঝড়ের বৃষ্টির পূর্বাভাস এখনও বলবৎ রয়েছে। ফলাফল বাজা এবং দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ায় বিপর্যয়কর এবং মারাত্মক বন্যা হতে পারে।

ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার জানিয়েছে, দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার  কিছু জায়গায় ১০ ইঞ্চি বৃষ্টি হতে পারে, । হারিকেন সেন্টার আরও বলেছে যে মূল ঝড়ের প্রভাব প্রবেশের আগেই বৃষ্টি তৈরি করতে পারে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X