হোটেল বুকিং এর জন্য কিছু প্রয়োজনীয় টিপস

হোটেল বুকিং এর জন্য কিছু প্রয়োজনীয় টিপস

হোটেল বুকিং এর জন্য কিছু প্রয়োজনীয় টিপস

হোটেল বুকিং এর জন্য কিছু প্রয়োজনীয় টিপস

আপনি ঠিক করেছেন কোথায় যাবেন,কতদিনের জন্য যাবেন, তবে কোন হোটেলে যাবেন, হোটেল কোথায়, রেট কেমন, এখন নেটে সার্চ করে দেখতে পারেন সবকিছুই। তবে ছবিতে যা দেখানো হয়েছে তা আসলেই কি সত্যি! হোটেল নিয়ে অনেকের অনেক অভিজ্ঞতা আছে। চড়া দামে ভাড়া দিলেই হোটেলটি সেরা এবং সেরা বলে মনে করেন অনেকে। কিন্তু বাস্তবে তা একেবারেই নয়।

দিন শেষে প্রত্যেক মানুষ বিশ্রাম ও নিরাপত্তার জন্য তার আবাসে ফিরে আসে। একইভাবে, জরুরী প্রয়োজনে, ব্যবসায়িক কাজ বা একা ভ্রমণের জন্য আপনাকে অনেক ক্ষেত্রে নিরাপদ রাত্রি যাপনের জন্য হোটেল বেছে নিতে হয়। প্রত্যেকেই তার নিজের চাহিদা এবং আর্থিক সামর্থ্য অনুযায়ী হোটেল নির্ধারণ করে। হোটেলে পৌঁছানোর পর অনেক সময় নানা অনাকাঙ্খিত ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়। এসব ঘটনা আমাদের মানসিকতাকে করুণ ও বিপর্যস্ত করে তোলে। আর তাই একা ভ্রমণের ক্ষেত্রে যদি হোটেলে রাত্রিযাপন করতে হয় তবে নিরাপত্তার স্বার্থে ছোটখাটো অনেক বিষয়ে চোখ-কান খোলা রাখতে হয়। ছোটখাটো বিষয়ে সচেতনতা অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা থেকে রক্ষা করবে।

হোটেলর খরচ ?

হোটেল বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল দাম। কিছু হোটেলে থাকার খরচ একটু বেশি। অযথা খরচ না করাই ভালো। হোটেলের দামের দিকে নজর রাখলে কম খরচে ঝামেলামুক্ত ট্রিপ নিশ্চিত হবে। হোটেলের দাম বেশি হলে তা অন্যান্য জিনিসের ওপর প্রভাব ফেলে। মানসম্মত সেবা পেতে ভালো হোটেল খোঁজার পরামর্শ দেওয়া হয়।

হোটেলড় অবস্থান?

আপনি যেখানে ভ্রমণ করছেন তার কাছাকাছি একটি হোটেল রাখা ভাল। এটি সহজেই হোটেল থেকে যে কোনও জিনিসপত্র নিয়ে আসতে পারে।  ভ্রমণের জন্য হোটেলের অবস্থান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কোথাও ভ্রমণের আগে হোটেলের থাকার ব্যবস্থা অবশ্যই বিবেচনা করা উচিত।

সুযোগ সুবিধা কেমন?

হোটেল বুকিং করার আগে সুবিধা সম্পর্কে জানা জরুরি। হোটেলে সুবিধা বিবেচনা করে একটি মনোরম ভ্রমণ উপভোগ করা যায়। ফিটনেস সেন্টার, সুইমিং পুল বা রেস্তোরাঁর সুবিধাগুলির একটি বিস্তৃত পর্যালোচনা করা উচিত। বিভিন্ন  ওয়েবসাইট থেকে বিভিন্ন হোটেলের সুবিধা সম্পর্কে জানা সহজ।

নিরাপত্তার দিকে মনোযোগ

যখন আপনাকে একা হোটেলে রাত্রিযাপন করতে হবে, তখন নিরাপত্তাকে অগ্রাধিকার দেয় এমন একটি হোটেলের সন্ধান করতে ভুলবেন না। আপনার হোটেলের নিরাপত্তা কর্মীরা সবসময় ডিউটিতে থাকে কিনা তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন। নিরাপত্তার দিকে মনোযোগ দিন  নয়তো   আপনি অপ্রীতিকর ঘটনার সম্মুখীন হতে পারেন।

থার্ড পার্টি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বুক করবেন না

পিক সিজনে প্রায় প্রতিদিনই হোটেলের সব কক্ষ বুক করা থাকে। সেই সময়ে লোকেরা সবচেয়ে সাধারণ ভুলটি করে যে তারা তৃতীয় পক্ষের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে হোটেল বুক করে। এই ওয়েবসাইটগুলি প্রায়ই অগ্রিম অর্থ প্রদানের দাবি করে। কিন্তু পরে দেখা যায় তারা হোটেল বুক করে রেখেছে যেখানে কোনো রুম খালী  নেই। তাই সবচেয়ে ভালো পদ্ধতি হল সরাসরি হোটেলে ফোন করে রুম বুক করা।

সকালের নাস্তা

আপনি যে হোটেলেই থাকুন না কেন, বুকিংয়ের সময় দেখে নিন সকালের নাস্তার ডিল অন্তর্ভুক্ত কিনা। কিছু হোটেল সকালের নাস্তার তালিকা করে, অনেকে আবার  তা করে না। তাই বুকিং করার আগে চেক করা আপনার দায়িত্ব।

ছবি দেখে সিদ্ধান্ত নিবেননা

একটি স্বনামধন্য পাঁচ তারকা হোটেল ছাড়া অন্য কোনো ছবির উপর নির্ভর করবেন না। অনেক ক্ষেত্রে, হোটেল কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের আকৃষ্ট করার জন্য ওয়েবসাইটে সঠিক চিত্র প্রদান করে না। সেক্ষেত্রে তা বাস্তব থেকে ভিন্ন হতে পারে।

প্রথম তলায় বা নিচতলায় রুম ঠিক করবেন না

হোটেলে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী হামলা হলে প্রথম তলা বা নিচতলা ক্ষতিগ্রস্ত হবে এটাই স্বাভাবিক। কারণ গ্রাউন্ড ফ্লোরটি আগমন ও প্রস্থানের জন্য সবচেয়ে সহজ এবং সুবিধাজনক। তাই নিরাপত্তার কারণে নিচতলার কক্ষ এড়িয়ে চলা উচিত।

খুব বেশি উপরের রুম ঠিক করবেন না

রুম খুব উঁচুতে ঠিক করবেন না। কারণ আপনি কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত কারণে চিৎকার করে কারো দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাইলে কেউ আপনার কথা শুনবে না। তাই খুব বেশি উঁচু মেঝে না বেছে নেওয়াই ভালো।

ডাবল বেড বা টুইন বেড রুম ঠিক করুন

আপনি যদি নিরাপত্তা সম্পর্কে নিশ্চিত না হন তবে অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে আপনি একটি দুই বেডের রুম ভাড়া নিতে পারেন। এটি যে কেউ আপনার সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করে এই ভেবে বিভ্রান্ত হবে যে আপনার একজন পার্টনার আছে।

হোটেল কর্মীদের আপনার রুম নম্বর গোপন রাখতে বলুন

হোটেল থেকে বের হওয়ার সময় হোটেল ম্যানেজারকে চাবি দেওয়ার সময় আশেপাশে অপরিচিত লোক থাকলে রুম নম্বরটি নিচু গলায় বলুন যাতে অন্য কেউ শুনতে না পারে। এবং হোটেল ম্যানেজারকে আপনার রুম নম্বর গোপন রাখতে বলতে ভুলবেন না।

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে সচেতন হোন

সোশ্যাল মিডিয়ায় অবস্থান ট্যাগ এড়িয়ে চলুন। আপনি কোথায় এবং কোন হোটেলে আছেন তার তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করলে অপরাধীরা সেই সুযোগ নিতে পারে।

বাইরে হোটেলের নাম উচ্চারণ করবেন না

অহেতুক হোটেলের বাইরে অপরিচিতদের কাছে হোটেলের নাম বলা থেকে বিরত থাকুন। এছাড়া যে কোনো যানবাহনে হোটেলে ফিরতে চাইলে হোটেলের কাছের অন্য কোনো স্থানে নেমে হোটেলের নাম গোপন করে কিছুক্ষণ পর পায়ে হেঁটে হোটেলে আসতে পারেন।

কেউ আপনাকে অনুসরণ করলে হোটেলের ঘরে প্রবেশ করবেন না

হোটেলে ঢোকার পর যদি আপনি অনুভব করেন কেউ আপনাকে অনুসরণ করছে, তাহলে আপনার রুমে প্রবেশ না করে রিসেপশনে যান। আর অবশ্যই খেয়াল রাখবেন অনুসরণকারী যেন সন্দেহ না করে আপনি তার উদ্দেশ্য বুঝতে পেরেছেন।

আপনার নিজের দায়িত্বে আপনার জিনিসপত্র প্যাক রাখুন

হোটেলের নিরাপত্তাকর্মীরা রুম পরিষ্কার করতে আসলে খেয়াল রাখুন। সেই সাথে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস আপনার নিজের তত্ত্বাবধানে রাখুন। । আর আপনার কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ বা দামি জিনিস আছে তা সহজে কাউকেও  বুঝতে দিবেননা।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X