ত্বকের সঙ্গে সংযুক্ত হতে যাচ্ছে মোবাইল ফোন: মোবাইল ফোনের জনক মার্টিন কুপার

ত্বকের সঙ্গে সংযুক্ত হতে যাচ্ছে মোবাইল ফোন: মোবাইল ফোনের জনক মার্টিন কুপার

ত্বকের সঙ্গে সংযুক্ত হতে যাচ্ছে মোবাইল ফোন: মোবাইল ফোনের জনক মার্টিন কুপার

ত্বকের সঙ্গে সংযুক্ত হতে যাচ্ছে মোবাইল ফোন: মোবাইল ফোনের জনক মার্টিন কুপার

প্রথম মোবাইল ফোন উদ্ভাবনের মাধ্যমে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে বিপ্লব ঘটান মার্টিন কুপার।

মোবাইল ফোনের কত রকম মডেলে এখন বাজার সয়লাব। সম্প্রতি ফোল্ডিং ফোন বের করার প্রতিযোগিতায়ও নেমেছে স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানিগুলো। তবে ভবিষ্যতে এই মোবাইল ফোন ক্ষুদ্র ডিভাইসের আকারে মানুষের ত্বকের সঙ্গে সংযুক্ত থাকবে— এমনটাই মনে করেন মোবাইল ফোনের জনক মার্টিন কুপার।

বিশেষ এক সাক্ষাৎকারে মার্টিন কুপার বলেন, ‘ভবিষ্যতে মানুষের কানের নিচের ত্বকে ফোনের ডিভাইস যুক্ত থাকবে। যার মাধ্যমে কথা বলা ও শোনা যাবে। এই ডিভাইসটি আলাদাভাবে চার্জ দেওয়ার প্রয়োজন হবে না। এটি মানুষের শরীর থেকেই চার্জ নেবে।

কুপার আরও বলেন, ‘মানুষের শরীরই একটা পারফেক্ট চার্জার। আমরা যখন খাবার খাই তখন শরীরে শক্তি উৎপন্ন হয়। তা ছাড়া, ইয়ারবাডের আকারের ছোট ওই ডিভাইস চালাতে খুব বেশি শক্তির প্রয়োজন হবে না।

মার্টিন কুপারের কথাতেই আভাস পাওয়া যাচ্ছে খুব শিগগিরই মোবাইল ফোন প্রযুক্তিতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে । এদিকে মানুষের মস্তিষ্কের সঙ্গে কম্পিউটারকে সম্পৃক্ত করতে ইলন মাস্কের নিউরালিংকের মতো বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এরই মধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে।

মার্টিন কুপার ১৯৭৩ সালে প্রথম মোবাইল ফোন উদ্ভাবনের মাধ্যমে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে বিপ্লব ঘটান তখন তিনি মটোরোলা কোম্পানির ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

    1 Comment

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X