ড্রোন বিধ্বস্তের ঘটনায় রুশ রাষ্ট্রদূতকে তলব ওয়াশিংটনের

ড্রোন বিধ্বস্তের ঘটনায় রুশ রাষ্ট্রদূতকে তলব ওয়াশিংটনের

ড্রোন বিধ্বস্তের ঘটনায় রুশ রাষ্ট্রদূতকে তলব ওয়াশিংটনের

ড্রোন বিধ্বস্তের ঘটনায় রুশ রাষ্ট্রদূতকে তলব ওয়াশিংটনের

মার্কিন ড্রোনের সঙ্গে একটি রুশ যুদ্ধবিমানের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষের ফলে মানববিহীন মার্কিন ড্রোনটি কৃষ্ণ সাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী।

মঙ্গলবার একটি রুশ সুখোই-২৭ জেট বিমানের সঙ্গে মার্কিন এমকিউ-৯ রিপার ড্রোনের ধাক্কা লাগে। এতে ড্রোন বিধ্বস্ত হয়।

ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র বরাবরই রাশিয়ার বিপক্ষে। এর মধ্যে এমন ঘটনা রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সরাসরি বিরোধিতার ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, ড্রোনটি আন্তর্জাতিক আকাশসীমায় একটি রুটিন মিশনে ছিল। তখনই দুটি রুশ জেট এটিকে আটকানোর চেষ্টা করে।

ইউএস এয়ার ফোর্সের ইউরোপ ও আফ্রিকার কমান্ডার জেনারেল জেমস হেকার বলেছেন, আমাদের এমকিউ-৯ ড্রোনটি আন্তর্জাতিক আকাশসীমায় রুটিন অপারেশন চালাচ্ছিল। সেই সময় একটি রুশ বিমানের সামনে এসে যায় ও ড্রোনটিকে ধাক্কা মারে। ফলে ড্রোনটি ভেঙে পড়ে। রুশদের এই অনিরাপদ ও অপেশাদার কাজের ফলে দুটি উড়োজাহাজ প্রায় বিধ্বস্ত হতে যাচ্ছিল।

মার্কিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের মুখপাত্র জন কিরবি বলেছেন, এই অঞ্চলে রুশ বিমানের মুখোমুখি হওয়া সাধারণ ঘটনা। প্রায়ই ঘটে থাকে। তবে এই ঘটনা বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। কারণ রাশিয়ার এই পদক্ষেপ ছিল অনিরাপদ ও অপেশাদার। প্রকৃতপক্ষে এটি ছিল বেপরোয়া পদক্ষেপ।

ওয়াশিংটন এ ঘটনায় রাশিয়ার নিন্দা জানিয়েছে। এই সংঘর্ষকে রাশিয়ার ‘বেপরোয়া পদক্ষেপ’ বলে উল্লখ করেছে। এই ঘটনায় রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন পররাষ্ট্রদপ্তরের মুখপাত্র নেড প্রাইস জানান, ‘রুশ রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এলে আমরা কড়া অভিযোগ দেব। রুশ যুদ্ধবিমান যা করেছে, তা একদমই অনিরাপদ ও অপেশাদার আচরণ। এরই মধ্যে মস্কোতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত লিন ট্র্যাসি রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে কড়া বার্তা দিয়েছেন।’

এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তলব করার পর রুশ রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনভ সাংবাদিকদের জানান, ইউরোপের পূর্ব অংশে যা ঘটছে, তা বিবেচনায় নিয়ে সতর্কতার সঙ্গে পদক্ষেপ নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, যেখানে যুক্তরাষ্ট্র ক্রিমিয়াকে রাশিয়া ফেডারেশনের একটি অংশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় না, সেখানে রাশিয়ান নৌবাহিনী বা রাশিয়ান বিমানবাহিনীকে উসকে দেওয়া প্রয়োজন ছিল কি-না।

আনাতোলি আন্তোনভ বলেন, ‘আমরা এমন পরিস্থিতি যাতে তৈরি না করি, যেখানে রাশিয়ান ফেডারেশন এবং যুক্তরাষ্ট্র অনিচ্ছাকৃত সংঘর্ষ বা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সম্মুখীন হয়।’

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X