May 25, 2024

Warning: Undefined array key "tv_link" in /home/admin/web/timetvusa.com/public_html/wp-content/themes/time-tv/template-parts/header/mobile-topbar.php on line 53
বাংলাদেশর নিকট রাশিয়ার পারমাণবিক জ্বালানি হস্তান্তর

বাংলাদেশর নিকট রাশিয়ার পারমাণবিক জ্বালানি হস্তান্তর

বাংলাদেশর নিকট রাশিয়ার পারমাণবিক জ্বালানি হস্তান্তর

বাংলাদেশর নিকট রাশিয়ার পারমাণবিক জ্বালানি হস্তান্তর

বিনিয়োগের আকার বিবেচনা করে রাশিয়া আজ আনুষ্ঠানিকভাবে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জ্বালানি ইউরেনিয়াম বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করেছে । আর  এই অনুষ্ঠানে কার্যত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে যোগ দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এ সময় তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ইউরেনিয়াম হস্তান্তর করেন। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীনতার ৫২ বছর পর শক্তির এক নতুন যুগে প্রবেশ করেছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনে তেল, গ্যাস ও কয়লার মতো জীবাশ্ম জ্বালানির পরিবর্তে ইউরেনিয়াম ব্যবহার করা শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ইউরেনিয়ামের প্রথম ইউনিট হস্তান্তর করবে রুশ কর্তৃপক্ষ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার মহাপরিচালক রাফায়েল গ্রসি অনুষ্ঠানে কার্যত অংশগ্রহণ করেন।

এর মাধ্যমে বাংলাদেশ বিশ্বের ৩৩ তম পারমাণবিক শক্তি ব্যবহারকারী দেশ হতে যাচ্ছে। আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে রূপপুর কেন্দ্র থেকে পারমাণবিক বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে। কেন্দ্র নির্মাণের কারণে পাবনা জেলার ঈশ্বরদীর রূপপুরের চেহারা পাল্টে গেছে।

পাবনার রূপপুরে এক লাখ ১৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে দেশের একমাত্র পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র। রাশিয়া ও ইউক্রেনের সাড়ে পাঁচ হাজার নাগরিক সেখানে কাজ করছেন। অন্যদিকে দেশের প্রায় ২৫ হাজার মানুষ এই প্রকল্পে কাজ করছেন।

ইউরেনিয়াম, যা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান জ্বালানি, রাশিয়া থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর দেশে আসে। জ্বালানিটি এখন রূপপুরে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে স্টোরেজ সুবিধায় রয়েছে। রূপপুর প্রকল্প আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়া থেকে এই ইউরেনিয়াম পাবে।

রাশিয়া থেকে আনা তাজা পারমাণবিক জ্বালানি বা ইউরেনিয়াম দিয়ে পারমাণবিক চুল্লির পরীক্ষা এপ্রিল পর্যন্ত চলবে। তবেই প্রথম ইউনিট থেকে জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে।

পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বহুল প্রত্যাশিত প্রকল্পের উদ্বোধন করা হবে বৃহস্পতিবার। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন কার্যত প্রথম ইউনিটের ইউরেনিয়াম হস্তান্তর অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প শুরুর পর থেকে বদলে গেছে এলাকার চিত্র। রুশদের প্রভাবে রূপপুর প্রকল্পের চারপাশে উঁচু ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। একসময়ের ঝোপঝাড়, খাল এলাকায় আধুনিক শপিং মল, রিসোর্ট ও রেস্টুরেন্ট দেখা যায়।

প্রকল্পটি নির্মাণে বিদেশি পরিবহনে বিভিন্ন পণ্য বিক্রি করে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অনেক ব্যবসায়ী ছুটে এসেছেন এ এলাকায়।আর স্থানীয়রা বলছেন, রূপপুর বদলের সঙ্গে পাবনার মানুষের জীবনযাত্রা পাল্টে গেছে।২০১৭ সালে কাজ শুরুর পর দেশের প্রথম পারমাণবিক প্রকল্প এখন বাংলাদেশের আত্মসম্মান ও সক্ষমতার প্রতীক।

প্রকল্পের বিবরণ অনুযায়ী, সরকার আশা করছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রথম ইউনিটটি ২০২৪ সালের সেপ্টেম্বরের মধ্যে এবং দ্বিতীয় ইউনিটটি ২০২৫ সালের মাঝামাঝি সময়ে চালু হবে।

৭,০০০ পেশাদার সহ ৩০,‌০০০ কর্মী প্রকল্পে কাজ করছেন। প্রকল্পটি ৬০-৮০ বছর ধরে কাজ করবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সূত্র জানায়, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মাধ্যমে নিউক্লিয়ার ক্লাবে প্রবেশ বাংলাদেশকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে সক্ষম হবে। কারণ এটি কার্বন নিঃসরণ কমানোর লক্ষ্যমাত্রা পূরণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে সক্ষম হবে।

একই সঙ্গে ফ্ল্যাশে বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচও কমবে। প্রকল্পের বিন্যাস অনুসারে, আরএনপিপি প্রতিদিন ২৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে এবং কার্বন নিঃসরণ কমাতে বিশ্বব্যাপী উদ্যোগ নিশ্চিত করবে।রুশ ঠিকাদার হিসেবে রোসাটম রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করে। বিদ্যুত কেন্দ্রটি প্রতিটি ১২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার দুটি ইউনিট নিয়ে গঠিত।

মন্ত্রণালয়ের অধীন পরমাণু শক্তি কমিশন আরএনপিপি প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। রাশিয়ান ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান AtomstoExport প্রকল্পের অধীনে ১২০০ মেগাওয়াটের দুটি ইউনিট নির্মাণ করছে। পারমাণবিক জ্বালানী রোসাটমের সহযোগী প্রতিষ্ঠান TVEL জ্বালানি দ্বারা উত্পাদিত হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ তাদের কাছ থেকে পারমাণবিক জ্বালানি কেনে।

ওয়ার্ল্ড নিউক্লিয়ার অ্যাসোসিয়েশনের ওয়েবসাইট অনুসারে, পারমাণবিক শক্তি ব্যবহারকারী দেশগুলির মধ্যে রয়েছে – মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ফ্রান্স, রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, কানাডা, ইউক্রেন, জার্মানি, জাপান, স্পেন, সুইডেন, বেলজিয়াম, যুক্তরাজ্য, ভারত, চেক প্রজাতন্ত্র, ফিনল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড, বুলগেরিয়া, পাকিস্তান, হাঙ্গেরি, স্লোভাকিয়া, ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা, মেক্সিকো, রোমানিয়া, আর্জেন্টিনা, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বেলারুশ, স্লোভেনিয়া, নেদারল্যান্ডস, ইরান এবং আর্মেনিয়া।

আরও পড়ুন

বিদেশে বসবাসরত সচিবদের সন্তান যাদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রেই বেশি

একবার পারমাণবিক জ্বালানী পাওয়ার প্ল্যান্ট চুল্লিতে লোড করা হলে, এক বছরের জন্য বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যায়। এর পরে, জ্বালানি চুল্লিতে পুনরায় লোড করতে হবে। ২০২১ সালের অক্টোবরে, রূপপুর ইউনিট-১ ইউনিট কাঠামোর মধ্যে চুল্লি স্থাপনের সাথে প্রায় সম্পন্ন হয়েছিল। এটি AIEA মান অনুযায়ী ইনস্টল করা হয়।

চুল্লি একটি পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান উপাদান। গত বছরের অক্টোবরে দ্বিতীয় ইউনিটের চুল্লি বসানো হয়।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাশিয়া সফরের সময় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য একটি ঋণচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X