যুবকের মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে তাকেই ‘চোর’ বলে মারধর ছিনতাইকারীদের

যুবকের মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে তাকেই ‘চোর’ বলে মারধর ছিনতাইকারীদের

যুবকের মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে তাকেই ‘চোর’ বলে মারধর ছিনতাইকারীদের

যুবকের মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে তাকেই ‘চোর’ বলে মারধর ছিনতাইকারীদের

যুবক বলার চেষ্টা করেন যে, তারই ফোন চুরি করে নিয়েছে এই দুই ছিনতাইকারী। কিন্তু সে কথা না শুনে উত্তেজিত জনতা যুবককেই চোর ভেবে মারধর করতে শুরু করেন।

ফোনে কথা বলতে বলতে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন এক যুবক। পথচারীদের ভিড়ে মিশে যুবককে অনুসরণ করছিল দুই ছিনতাইকারী। রাস্তায় ভিড় একটু বাড়তেই আচমকা যুবকের হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নিয়ে পালায় তারা। যুবকও ছিনতাইকারীদের পিছু ধাওয়া করে এক জনকে ধরে ফেলেন।

ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলতেই এ বার সে পাল্টা যুবককে উদ্দেশ করে ‘চোর চোর’ বলে চিৎকার করতে শুরু করে। তাকে জাপটে ধরেও ফেলে দুই ছিনতাইকারী। তত ক্ষণে আশপাশের লোকজন এই ঘটনা দেখে যুবককে ঘিরে ফেলেন। যুবক বলার চেষ্টা করেন যে, তারই ফোন চুরি করে নিয়েছে এই দুই ছিনতাইকারী। কিন্তু সে কথা না শুনে উত্তেজিত জনতা যুবককেই চোর ভেবে মারধর করতে শুরু করেন।

এই পরিস্থিতি যখন চলছিল, ওই রাস্তা দিয়েই যুবকের এক পরিচিত যাচ্ছিলেন। ভিড় দেখে থামতেই দেখেন তার পরিচিত যুবককে মারধর করছেন লোকজন। তখন ওই ব্যক্তি মারমুখী জনতাকে বলেন, যুবক চোর নয়। তখন যুবক চিৎকার করে বলেন, “আপনারা ভুল ভাবছেন, এই দু’জনই আমার মোবাইল চুরি করে পালাচ্ছিল। ধরতেই আমাকে পাল্টা চোর বলে মারতে শুরু করে।”

যুবক এবং তার পরিচিতের কথা শুনে দুই ছিনতাইকারীকে চেপে ধরা হয়। বেশ কয়েক ঘা খাওয়ার পর তারা স্বীকার করে ওই যুবক চোর নয়। তারাই মোবাইল চুরি করেছিল। এ কথা স্বীকার করতেই লাথি, ঘুষি, জুতোপেটা চলে। তার পর তাদের পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের জয়পুরে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    X